1. admin@dailypratidinerbarta.com : admin :
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আজ দৈনিক প্রতিদিনের বার্তার প্রকাশক ও সম্পাদক মোঃ ফিরোজ শাঁইয়ের শুভজন্মদিন নিপুণ কে, কি এবং কি করেন, তা তার নিজেরই ভেবে দেখা উচিৎ- ডিপজল মুন্সীগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী মিরাপাড়া নির্মিত হচ্ছে মসজিদ ও কমপ্লেক্স এর নতুন চিত্র। তুষারধারায় চেয়ারম্যান সেন্টুর নির্দেশে প্যানেল চেয়ারম্যান অনামিকা আরসিসি রাস্তার কাজের শুভ উদ্বোধন করলেন  কয়রায় অসংক্রামক রোগের প্রতিকার ও প্রতিরোধ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন নাইকো দুর্নীতি মামলা খালেদার জিয়ার বিরুদ্ধে সাবেক বাপেক্স এমডির সাক্ষ্য মাতুয়াইল শিশু মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটে ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যু জাতীয় আইটি প্রতিযোগিতায় অটিজম বিভাগে প্রথম স্হান অর্জন করেছেন,কয়রার রায়াত মুন্সীগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা কমিটি সভায় কিশোর গ্যাং মাদক নিয়ন্ত্রণে কঠোর ভূমিকা। ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশ কর্তৃক মাদক সহ আটক -৭

গলাচিপায় কালবৈশাখীর তান্ডবে দিশেহারা সাধারণ মানুষ

  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৭ মে, ২০২৩
  • ৬৯ বার পঠিত

মোঃ নাসির উদ্দিন,পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ-

পটুয়াখালীর গলাচিপায় কালবৈশাখীর তান্ডবে দিশেহারা হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। সোমবার (১৫ মে) ও মঙ্গলবার (১৬ মে) পরপর দুদিনের কালবৈশাখীর তান্ডবের সাক্ষী গলাচিপার পানপট্টি, গলাচিপা সদর, গোলখালী, আমখোলা ইউনিয়নের একাধিক গ্রামবাসী। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে পানপট্টি ইউনিয়নের সতিরাম, বিবির হাওলা, পানপট্টি লঞ্চঘাটসহ বেশ কিছু গ্রাম ও এলাকা। এতে শত শত গাছপালা সহ ভেঙ্গে গেছে বহু ঘরবাড়ি। আবার অনেক ঘরবাড়ি, মসজিদ, মাদ্রাসার আংশিক ক্ষতি হয়েছে। এ বিষয়ে পানপট্টি ইউনিয়নের বিবির হাওলা গ্রামের জেলে মো. ফারুক মিয়া বলেন, ‘রাতে মাছ ধরার নৌকা থেকে বাড়ি এসে গোয়াল ঘরে গরু বাধতে যাই। এ সময় হঠাৎ করে ঝড়ে আমার ঘরের ওপর একটা বড় গাছ পড়ে মাটির সাথে মিশে যায়। ঘরের অবস্থা বেগতিক দেখে সন্তানদের নিয়ে পাশের মাঠে গিয়ে আশ্রয় নেই। এ বিষয়ে রাহিমা বেগম বলেন, আমি ঘরের মধ্যে আছিলাম। হঠাৎ দেহি ঝড়ের বাতাসে আমাগো ঘরের চাল উইড়া যাইতেছে। ঘরডা কাইত হইয়া যাইতেছে। এ্যার মধ্যে ঘরের উপরে একটা মোডা গাছ পইড়া ঘরড়া ভাইংগা গ্যাছে। আমি আমার পোলাডারে লইয়া বাঁশঝাড়ের কোনায় যাইয়া খারাই। এহন আমি ক্যামনে আবার এই ঘর বানামু। আমার স্বামীর এত স্বম্বল নাই। এহন সরকার যদি আমাগো জন্য কিছু করে। একই ইউনিয়নের গুপ্তের হাওলা গ্রামের মো. রফিক হাওলাদার বলেন, ‘আকাশের অবস্থা খারাপ দেইখ্যা আমি গরুর কাছে যাই। এর মধ্যেই আমার বাচ্চারা চিৎকার করে ঘর ছেড়ে দৌঁড়ে বাইরে চলে যায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই দেখি আমার ঘরের চালের উপর বড় একটি চাম্বল গাছ চাপা দিয়েছে। আল্লাহ এখন শুধু প্রাণ বাঁচাইছে।’ এ বিষয়ে জানতে চাইলে পানপট্টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মাসুদ রানা বলেন, কালবৈশাখী ঝড়ে আমার ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো বেশির ভাগই জেলে। এরা দিন আনে দিন খায়। এদের এক এক পরিবারের দু’তিনবার নদী ভাঙনের কবলে বিলীন হয়ে গেছে। গাছপালা উপড়ে পড়েছে, ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এদের পক্ষে এই ক্ষতি পুষিয়ে ওঠা সম্ভব নয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার ইউনিয়নের মানুষের দিকে সুদৃষ্টি দিলে এরা আবার স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে সক্ষম হবে। এ বিষয়ে গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল বলেন, আমরা ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’র কবল থেকে বেঁচে গিয়েছি। কিন্তু তার একদিন পরই কালবৈশাখী ঝড়ের কবলে পড়ে অনেক ঘর বাড়ি ও গাছ পালার ক্ষতি হয়েছে। আমি সরেজমিনে এসে পরিদর্শন করেছি। ক্ষতিগ্রস্তদেরকে আমরা স্থানীয়ভাবে সহায়তা করার চেষ্টা করছি। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। যারা কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের কাছ থেকে আবেদন নিচ্ছি। যাতে আবেদনগুলো উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ © দৈনিক প্রতিদিনের বার্তা ©
Theme Customized By Shakil IT Park