1. admin@dailypratidinerbarta.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

মাদক কারবারি দের তালিকা পেয়েও ব্যবস্থা নেননি পুলিশ

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৭ জুলাই, ২০২৩
  • ৮১ বার পঠিত

আরিফ মিয়া,স্টাফ রিপোর্টারঃ-

মাদকের কারবারিতে পরিণত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) ৬ নম্বর ওয়ার্ড। হাত বাড়ালেই মিলছে নানা ধরনের মাদক।

৬ ওয়ার্ডের যেখানে সেখানেই চলে মাদক সেবনের ও কিশোর গ্যাংয়ের আড্ডা। ড্রেন গুলো পরিষ্কারের সময় মিলছে মাদকের হাজার হাজার খালি বোতল। স্থানীয় কাউন্সিলর মাদক কারবারিদের তালিকা দিয়েছেন থানায়, কিন্তু ওই পর্যন্তই। ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ প্রশাসন এ বিষয়ে নাসিকের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি বলেন, ‘আমি আমার এলাকার বিষয়ে পুলিশকে জানিয়েছি কারা কারা এর সঙ্গে জড়িত। তাঁদের নামের তালিকাও থানায় দিয়েছি কিন্তু পুলিশ তেমন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।” নাসিকের ৬ নম্বর ওয়ার্ডটি সিদ্ধিরগঞ্জের সুমিলপাড়া, বাগমারা ও
মণ্ডলপাড়া নিয়ে গঠিত। ৩ দশমিক ১৭ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এ ওয়ার্ডে ৩০ হাজারের বেশি মানুষের বাস। এখানে রয়েছে বিহারিপট্টি, তেলের
ডিপো ও আদমজী ইপিজেড।
জানা গেছে, নাসিকের এই এলাকায় হাত বাড়ালেই মিলছে চাহিদামতো দেশি-বিদেশি মাদক। গাঁজা থেকে শুরু করে ভারতীয় মদ,
বাংলা মদ, ইয়াবা, ফেনসিডিলসহ নানা
রকম মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের কেন্দ্রস্থল এখন ৬ নম্বর ওয়ার্ড। মাদকের সহজলভ্যতায় অন্য এলাকার লোকজন এই এলাকা থেকে
মাদক কিনে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। মণ্ডলপাড়া এলাকার আবু মালেক বলেন, শুধু মণ্ডলপাড়া না, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের যত ড্রেন আছে সবগুলোতেই একই অবস্থা। এ এলাকায় কবরস্থানেও মাদক বিকিকিনি ও সেবন করা হয়।

সেখানেও মাদকের খালি বোতল
পাওয়া যায়। এদিকে পুলিশের একটি সূত্র বলছে, বিহারিপট্টিতেই পাওয়া যায় সবচেয়ে
মাদক।

এইরকম অনেক মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তার বেশির ভাগই বিহারিপট্টির বাসিন্দা। ওয়ার্ডের ময়লা ড্রেন গুলো পরিষ্কার করতে গেলে পাওয়া যাচ্ছে ফেনসিডিলের হাজার হাজার খালি বোতলসহ দেশি- বিদেশি মদের বোতল।

গত শুক্রবার দুপুরে মণ্ডলপাড়ার একটি ময়লা ড্রেন পরিষ্কার করতে গেলে দুই হাজারের
বেশি ফেনসিডিলের খালি বোতল পান পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা। দুই মাস আগেও এই ড্রেন পরিষ্কার করার সময় আরও বেশিসংখ্যক বোতল পাওয়া গিয়েছিল বলে জানান পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা।

কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি আরো বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সব সময় কাজ করে যাচ্ছি।
তিন দিন আগে সুমিলপাড়া বিহারি কলোনি এলাকায় মাদক সেবন বা বিকিকিনির সঙ্গে জড়িতদের বলে দেওয়া হয়েছে, বন্ধ না করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি গোলাম
মোস্তফা বলেন, “আমরা সব সময় মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে আসছি। অভিযান অব্যাহত থাকবে।এর মধ্যে সুমিলপাড়া ও বিহারি কলোনি থেকেও অনেক মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছি।’ স্থানীয় কাউন্সিলরের সঙ্গে বসে শিগগিরই ওই এলাকায় আরও বড় ধরনের অভিযান চালানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ © দৈনিক প্রতিদিনের বার্তা ©
Theme Customized By Shakil IT Park