1. admin@dailypratidinerbarta.com : admin :
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
একে একে বেরিয়ে আসছে এনবিআরের ‘কালো বিড়াল’, কোথায় কী সম্পদ মুন্সীগঞ্জে রাস্তার পাগলকে বদলে দিলেন সেবায় মানবকল্যাণ টিম শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টায় এক যুবক আটক মুন্সীগঞ্জে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা ডিসি মতলব উত্তরে ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে চার পরিবার সমাজচ্যুত মুন্সীগঞ্জে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী আগমনে বিষয়ে যা বললেন এমপি মুন্সীগঞ্জে পদ্মায় প্রধানমন্ত্রী আগমনে জেলা পুলিশ সুপার ব্রিফিং মতিউরের চার ফ্ল্যাট ও জমি ক্রোকের নির্দেশ কয়রায় যৌতুক নির্যাতনের শিকার হয়ে ঘর ছাড়া মা -মেয়ে বুয়েট শিক্ষার্থী ফারদিন হত্যা মামলার অধিকতর তদন্ত প্রতিবেদন ১ আগষ্ট

মালিককে গুরুতর আহত করে নারীর প্রাণ কেড়ে নিলো মহিষ

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ৯১ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক :-
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে মহিষের আক্রমণে হাজেরা বেগম (৫০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। রবিবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে উপজেলার লাউহাটি ইউনিয়নের তারটিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতর ও পুলিশ প্রশাসন স্থানীয়দের সহযোগিতায় মহিষটিকে মেরে ফেলেছে।

জানা গেছে, রবিবার সকাল ১০টার দিকে এলাসিন ইউনিয়নের বারপাখিয়া গ্রামের ঝরু মিয়ার ছেলে শরিফ মিয়ার একটি গৃহপালিত মহিষ আক্রমণাত্মক হয়ে প্রথমে শরিফ মিয়ার ওপর চড়াও হয়। শিংয়ের আঘাতে শরিফ মিয়া গুরুতর আহত হন। পরে মহিষটি এলোপাতাড়ি দৌড়াতে থাকে। সামনে যাকে পেয়েছে তাকেই আক্রমণ করেছে।

এলাসিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মানিক রতন জানান, পাগলা মহিষের আক্রমণে এ ইউনিয়নের তিন গ্রামের অন্তত ১০ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে মালিক শরিফ মিয়ার অবস্থা খুবই গুরুতর। পরে মহিষটি লাউহাটি ইউনিয়নের তারটিয়া গ্রামে চলে যায়।

লাউহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহিন মোহাম্মদ খান জানান, মহিষের আক্রমণে তারটিয়া গ্রামের হাজেরা বেগম নামের এক নারী মারা গেছেন। এ ছাড়াও পাগলা মহিষটি লাউহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হাসমত আলী খানসহ অন্তত ৮-১০ জন ব্যক্তিকে আক্রমণ করে আহত করেছে। গুরুতর আহতাবস্থায় হাসমত আলীকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

দেলদুয়ার উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. বাহাউদ্দিন সারওয়ার রিজভী জানান, খবর শোনার পর দ্রুত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রানা মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। পরে বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানার ট্রাইব্যুলাইজার টিমকে বিষয়টি জানানো হয়। তারা এসে মহিষটিকে অচেতন করার প্রস্তুতি নেন। কিন্তু এর আগেই মানুষ দা ও শাবল দিয়ে কুপিয়ে মহিষটিকে মেরে ফেলে।

দেলদুয়ার থানার ওসি নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, একটি মহিষ দুই ইউনিয়নে একাধিক গ্রামে তাণ্ডব চালায়। খবর পেয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা থেকে আসা একটি টিমসহ পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। মহিষটি একটি বাড়িতে ঢুকে তাণ্ডব চালালে ওই বাড়ির এক পুরুষ সদস্য প্রাণ বাঁচাতে বাঁশঝাড়ে গিয়ে ওঠেন। মহিষটি সেখানে তাকে আক্রমণ করতে গিয়ে ঝাড়ে আটকে যায়। পরে মানুষের হাতে মারা যায় মহিষটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ © দৈনিক প্রতিদিনের বার্তা ©
Theme Customized By Shakil IT Park